সর্বশেষ সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

Bangla News bangladesh news Bengali News Bangla NewsPaper bangladesh newspaper Paper Bengali NewsPaper Bangla bengali newspaper Online Bangla News bangla news bd newspaper bangladesh newspapers bangla news paper bangladeshi newspaper news paper bangladesh daily newspapers of bangladesh current news bengali daily newspaper daily bangla newspaperdaily news bangladesh news dhaka news world news national news bangladesh media bangladesh sports bangladesh politics bangladesh business bangla khobor bangla potrika.

human-rights news Bangla News Bangladesh News Bengali News Bangla NewsPaper bangladesh Newspaper Paper, Bengali NewsPaper,bangla newspaper , Online Bangla News. bd all bangla newspaper, bangladesh newspaper bangla news paper bangladeshi newspaper news paper bangladesh, daily newspapers of bangladesh current news bengali bangladesh daily newspaper daily newspaper,daily news,dhaka news.

world news national news bangladesh bangla papermedia bangladesh sports bangladesh politics bangladesh business all bangla news bangla khobor,bangla potrika,human-rights news, bangla bangladesh prothom alo bangladesh newspaper bangla newspaper bangla news bdnews24 bangladesh news bd news bangla news paper bdnews24 bangla all bangla newspaper bd newspaper bangladeshi newspaper bangladesh newspapers bangladesh news paper banglanews bd news 24 anglanews24 bdnews bengali newspaper newspaper bangladesh all bangla news bangladesh daily newspaper daily bangla news paper bangla paper.

রেকর্ড আর্জেন্টিনার পক্ষে তবুও কথা থেকে যায়

লাতিন ফুটবলের অন্যতম প্রতিভূ আর্জেন্টিনা দুই ম্যাচে জয়ী হয়ে উঠে গেছে ‘হাউজ অব সিক্সটিনে’। শেষ ম্যাচ আজ। এবার তাদের প্রতিপক্ষ সেই চিরচেনা আফ্রিকার ফুটবল পরাশক্তি নাইজেরিয়া। আর্জেন্টিনা ৬ এবং নাইজেরিয়া ৪ পয়েন্ট সংগ্রহ করেছে। আর্জেন্টিনা চাইছে এই ম্যাচে নাইজেরিয়াকে পরাজিত করে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে। অন্য দিকে নাইজেরিয়ার স্বপ্ন এই খেলায় আর্জেন্টিনাকে পরাজিত করে গ্রুপ শীর্ষ হওয়া। তবে হেরে গেলে তাদেরকে অনেক হিসাব-নিকাশের মধ্যে পড়তে হবে।

আর্জেন্টিনা প্রথম ম্যাচে বসনিয়াকে ২-১ এবং ইরানকে ১-০ গোলে হারিয়ে দিয়েছে। তবে তাদের খেলা মন ভরাতে পারেনি। মেসি দু’টি নান্দনিক গোল করেছেন ঠিকই। তবে ম্যারাডোনার দেশটিকে তাদের চিরচেনারূপে দেখা যায়নি। বাছাই পর্বে তাদের দাপটের ধারাবাহিকতা দেখে বিশেষজ্ঞরা বলেছিলেন আর্জেন্টিনার হাতে রয়েছে দুনিয়া কাঁপানো আক্রমণভাগ। হিগুয়েন, অ্যাগুয়েরো, ডি মারিয়া এবং সবার ওপরে থাকা মেসি। তাদের মধ্যে মেসির উপস্থিতি হঠাৎ আলোর ঝলকানির মতো দেখা গেলেও ডি মারিয়া, অ্যাগুয়েরো কিংবা হিগুয়েনকে তেমন উজ্জ্বলভাবে দেখা যায়নি। যদিও মারিয়া জানিয়েছেন, তাদের দুই সেরা স্ট্রাইকার হিগুয়েন অ্যাগুয়েরো ইনজুরিতে। তাই তারা তাদের স্বাভাবিক খেলা খেলতে পারছেন না। বসনিয়া ও ইরানের বিপক্ষে এই দুইজনকে নি®প্রভ মনে হয়েছে।

 এ ছাড়া আর্জেন্টিনা তাদের চিরায়ত ঐতিহ্যিক স্টাইলকে মাঠে দেখাতে পারছে না। ছোট ছোট পাস। শিল্পকে ধারণ করে এগিয়ে চলা এবং মাঝমাঠ দিয়ে হঠাৎ করেই দ্রুতগতিতে আক্রমণ করা। কিন্তু দুই ম্যাচেই আর্জেন্টিনার সেই ম্যাচের ধারা দেখা যায়নি। বসনিয়ার সাথে চেষ্টা করেছে তারা। তবে ইরানের শক্তিশালী ডিফেন্সের সামনে অনেকটা অসহায় মনে হয়েছে মেসি বাহিনীকে। ম্যাচের শেষ মিনিটে মেসির আচমকা মাপা শটে গোল না হলে হয়তো ড্র হয়ে যেত ম্যাচ। আজকে আর্জেন্টিনা তাদের ছন্দময় খেলা খেলে নাইজেরিয়াকে চাপে রাখবে। সুন্দর ফুটবল খেলাটা আর্জেন্টিনার কাছে প্রধান বিষয়। ঈর্ষণীয় স্ট্রাইকিং জোন নিয়ে তারা ঝাঁপিয়ে পড়তে চায় প্রতিপক্ষের ওপর। সুন্দর খেলার পাশাপাশি গোলও করতে হবে স্ট্রাইকার জোনকে। তাই কোচ হিগুয়েন এবং অ্যাগুয়েরোর বিকল্প হিসেবে লাভেজ্জি ও পালাসিওর কথা মাথায় রেখেছেন।

 তাদের তিনি ইরানের বিপক্ষে মাঠে নামিয়েছেন। মাঝমাঠে দীর্ঘদেহী নাইজেরিয়ার ফুটবলারদের বিপক্ষে আর্জেন্টিনা তাদের টেকনিক দিয়ে প্রাধান্য বিস্তার করতে চাইবে। ফলে ডি মারিয়াকে আরো গতিময় হতে হবে। মাসকেরানো, পাবলো জাবালেতা, গাগো, রোজা কিংবা ফ্রেডরিককে তাদের সেরাটা দিয়ে আর্জেন্টিনাকে এক দলে পরিণত করতে হবে। শুধু মেসির দিকে চেয়ে থাকলেই হবে না। তাকে সহায়তাও করতে হবে। যদিও কোচ সাবেলা বলেছেন, মেসির মতো একজন তারকা ফুটবলার থাকলে যেকোনো ম্যাচের চরিত্র বদলে যেতে পারে। বসনিয়া ও ইরানের বিপক্ষে মেসি যে ম্যাজিক মুহূর্ত নির্মাণ করেছিলেন আজো কি তা দেখা যাবে। যদিও আর্জেন্টিনার সমর্থকেরা মেসির ম্যাজিক মোমেন্ট দেখার জন্য আশা করে আছে। সাবেলা একটা বিষয়ে তেমন চিন্তিত নন। তা হলো তার দলের কারো তেমন বড় কোনো ইনজুরি সমস্যা নেই। সবাই পুরোপুরি ফিট।


নাইজেরিয়ার সামনে এক কঠিন পরীক্ষায় তাদের পুরনো প্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনার মুখোমুখি তারা। বসনিয়ার সাথে জয় পাওয়ার পর তারা দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠার স্বপ্ন দেখছে। আর্জেন্টিনার সাথে ড্র করতে পারলেই তাদের স্বপ্ন পূরণ হবে এবং ১৯৯৮ বিশ্বকাপের পর আবার তারা দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠবে। নাইজেরিয়া ২০০২ এবং ২০১০ বিশ্বকাপে প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নিয়েছিল। গ্রুপ পর্বে তারা সবার নিচে ছিল। গত বিশ্বকাপে নাইজেরিয়া পরাজিত হয়েছিল গ্রিসের কাছে। স্টিফেন কেশি কোচ হিসেবে আসার পর ২০১৩ সালে নাইজেরিয়া জয় করে আফ্রিকান নেশনস কাপ। এবার সুপার ঈগলরা দ্বিতীয় রাউন্ডের কাছাকাছি। দলে আছেন জন ওবি মাইকেল। তিনি ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার হিসেবে চমৎকার নৈপুণ্য দেখাচ্ছেন। এ ছাড়া ওগেনাই ওনজি চার ডিফেন্সের একজন, যিনি দলকে সব সময় শক্ত অবস্থানের ওপর দাঁড় করাতে চান। নাইজেরিয়ার সেরা তারকা অবশ্য ওদেমউইঙ্গি।

এই স্ট্রাইকার দলের হয়ে দৃষ্টিনন্দন কারিশমা দেখাচ্ছেন। এমনকি গোলও করেছেন। তিনি পাসিংয়ের ক্ষেত্রে ৯১ ভাগ সফল এবং গোলের সুযোগও সৃষ্টি করেছেন। ইমানিকের সাথে যৌথভাবে আক্রমণ রচনা করতে ভালোবাসেন ওদেমউইঙ্গি। তবে নাইজেরিয়ার ভিক্টর মোজেস এবং গডফ্রে ওরোয়াবোনি ইনজুরিতে পড়েছেন। তাদের কোচ অবশ্য আশা করছেন যে, তারা দুইজন আজ খেলতে পারেন।

নাইজেরিয়া ১৯৯৮ বিশ্বকাপের পর এবারই প্রথম বসনিয়াকে পরাজিত করে জয়ের মুখ দেখল। ফ্রান্স বিশ্বকাপের পর এবার তারা দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠতে পারে। ব্রাজিল বিশ্বকাপে নাইজেরিয়া এখন পর্যন্ত কোনো গোল খায়নি। আর্জেন্টিনা এর আগে নাইজেরিয়ার সাথে ৬ বার মুখোমুখি হয়। এর মধ্যে চারবার জয়ী হয় আর্জেন্টিনা। আর্জেন্টিনা ইতোমধ্যে শেষ ১৬-তে উঠে গেছে। তবে নাইজেরিয়ার সাথে তারা পরাজিত হলে গ্রুপে দ্বিতীয় স্থানে থাকবে।
নাইজেরিয়া দুর্দান্ত খেলেছে বসনিয়ার সাথে। তারা গোলও পেয়েছে। তারা কাউন্টার অ্যাটাকে বসনিয়াকে গোল দিয়েছিল। সেই একই ধারায় খেলে তারা আর্জেন্টিনাকে পরাজিত করতে চায়। তবে মেসি এমন একজন ফুটবলার যিনি দুই দলের মধ্যে পার্থক্য গড়ে দিতে পারেন। ফলে আর্জেন্টিনাই ম্যাচে প্রাধান্য বিস্তার করবে এবং ২-১ গোলে জয়ী হবে।


Disclaimer:
This post might be introduced by another website. If this replication violates copyright policy in any way without attribution of its original copyright owner, please make a complain immediately to this site admin through Contact.

লিবিয়ায় নিহত দুই ভাইয়ের গ্রামের বাড়ি গোসাইরহাটে শোকের মাতম

লিবিয়ার বেনগাজীতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় শরীয়তপুরের দুই প্রবাসী সহোদরের মৃত্যুর খবরে তাদের গ্রামের বাড়ি গোসাইরহাটের সাবেরপাড়া গ্রামে চলছে শোকের মাতম। পরিবারের আর্থিক সচ্ছলতার জন্য দুই ছেলে স্বপন ও মিলনকে বিদেশে পাঠিয়ে এখন বাকরুদ্ধ তাদের বাবা-মা। মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনার সংবাদ শোনার পর মিলন ও স্বপনের প্রতিবেশীরাও শোকাচ্ছন্ন
নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জীবিকার তাগিদে ২০১০ সালে মিসর যান শরীয়তপুরের কৃষক পরিবারের সন্তান মিলন ছৈয়াল। ২০১২ সালে একই পথে পাড়ি জমান বড় ভাই স্বপন ছৈয়ালও। পরে একটি মিনারেল ওয়াটার কারখানায় কাজ নিয়ে দুই ভাই মিসর ছেড়ে চলে যান লিবিয়ার বেনগাজী শহরে। পরিবারের আর্থিক অসচ্ছলতা দূর করার জন্য সেখানে কঠোর পরিশ্রম করছিলেন দুই ভাই। কিন্তু ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় তাদের মৃত্যুতে ঘোর অনিশ্চয়তায় এখন তাদের পরিবার।
প্রতিদিনের মতো গত শনিবারও বেনগাজী শহরে ভাড়া বাসায় বসে সহকর্মীদের সাথে দুপুরের খাবার খাচ্ছিলেন দুই ভাই। হঠাৎ একটি শব্দ। আর মুুহূর্তেই ছিন্নভিন্ন দুই ভাই। ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু ঘটে তাদের। একই ঘটনায় আরো দুই বাংলাদেশী আহত হয়েছেন। তারা হলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ইব্রাহিম ও কামাল। ইব্রাহিম প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছাড়া পেলেও কামাল হাসপাতালে ভর্তি আছেন।
নিহত স্বপন ছৈয়ালের স্ত্রী মালেকা বেগম বলেন, এক মাস বয়সী সন্তান সাব্বিরকে রেখে বিদেশে যায় তার বাবা। ছেলেটার বয়স এখন আড়াই বছর। বাবার কোলে তো আর চড়া হবে না, অন্তত বাবার মুখটা সে যেন শেষ বারের মতো দেখতে পারে সরকার যেন সেই ব্যবস্থা করে।
নিহত স্বপন ও মিলনের মা মুর্শেদা বেগম কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, সামনের ঈদে দুই ছেলের দেশে আসার কথা ছিল। ছোট ছেলে মিলনের বিয়ের জন্য মেয়ে দেখছিলাম। কিন্তু সব শেষ হয়ে গেল।
তাদের বাবা আব্দুল কুদ্দুস ছৈয়াল বলেন, দুই ছেলেকে তো আর পাব না। তবে তাদের লাশটা যেন দ্রুত দেশে এনে মাটি দিতে পারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এটাই আমাদের দাবি।

Disclaimer:
This post might be introduced by another website. If this replication violates copyright policy in any way without attribution of its original copyright owner, please make a complain immediately to this site admin through Contact.

ডিএনডিবাসী চরম দুর্ভোগে

কলেজের উদ্দেশে বাসা থেকে বের হয়ে নিদারুণ কষ্টে পড়েছেন তাহমিনা আক্তার। এক হাতে বইপত্রের ব্যাগ অন্য হাতে ছাতা আর জুতা। পা ডুবে আছে পানির নিচে। কাদা-পানি তার ওপর গর্ত। এভাবে চরম দুর্ভোগের মধ্যে গত রোববার সকালে তার কলেজে যাওয়া। ডিএনডির দেলপাড়া আদর্শনগরের বাসিন্দা রিমা আক্তার লিপি তোলারাম কলেজের স্নাতক (সম্মান) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। তিনি জানালেন, টানা বৃষ্টিতে তাদের কষ্টের শেষ নেই। ঘরের ভেতরে পানি ঢুকেছে, রাস্তাঘাট পানিতে ডুবে গেছে। তার মধ্যে কাদা আর বড় বড় গর্ত। ক্যানেলগুলোতে পানি চলাচল বন্ধ। কি যে দুর্ভোগ, তা ভাষায় প্রকাশ করা যাচ্ছে না।
একইভাবে আক্ষেপের সুরে ডিএনডির টাওয়ারপার এলাকার বাসিন্দা হাজী আবুবকর সিদ্দিকের অভিযোগ, ডিএনডির মানুষের কষ্ট আর দুর্ভোগ কি কেউ দেখে? এক দিকে রাস্তাঘাটের বেহাল, অন্য দিকে ড্রেনের ব্যবস্থা নেই। ক্যানেলগুলো ময়লাআবর্জনায় ভরে গেছে। পানি সরবরাহ কম হচ্ছে। সামান্য বৃষ্টিতে রিকশা কিংবা অন্য যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। আমাদের কি যে কষ্ট শুরু হয়ে যায়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, টানা বর্ষণে ডিএনডিতে বসবাসকারী বিপুল মানুষকে চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে। ডিএনডির নি¤œাঞ্চলের অনেকের বসতবাড়িতে পানি উঠেছে। পাড়া-মহল্লার রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে পানির নিচে। এর মধ্যে মেরামত না করায় অনেক রাস্তায় তৈরি হয়েছে বড় বড় গর্ত। এক দিকে অঝোর বৃষ্টি অন্য দিকে কাদা-পানিতে একাকার হয়ে দুর্ভোগ বেড়ে গেছে কয়েকগুণ। ডিএনডি এলাকার বাসিন্দা কুতুবপুর ইউপির ৪ নম্বর মেম্বর জাহাঙ্গীর আলম জানান, ৩৩ বছরেও ডিএনডি এলাকার মানুষের দুঃখকষ্ট আর দুর্ভোগ দূর হয়নি। প্রতি বছর বর্ষাকাল আসে অভিশাপ হয়ে। ঘরবাড়ি রাস্তাঘাট ডুবে যায় পানিতে। কষ্টের মধ্যে মানুষকে বসবাস করতে হয়।
সূত্র জানায়, ডিএনডির মূল পরিসীমা ফতুল্লার কুতুবপুর ইউনিয়ন। সরেজমিন দেখা গেছে, টানা বর্ষণে ডিএনডির দেলপাড়া ভুইগড়, আর্দশনগর, চিতাশাল, নুরবাগ, কুসুমবাগ, শাহীবাজার রসুলপুর, নিশ্চিন্তপুর, রামারবাগ, নন্দলালপুর, তক্বারমাঠ, লালপুর, ইসদাইর, লামপাড়া গাবতলি, জালকুড়ি, পাগলা, নয়ামাটি, সিদ্ধিরগঞ্জ, মিজিমিজি, বাগমারা, সানারপাড়, মৌচাক, মামুদপুর, মাদবরবাজার, তুষারধার, গিরিধারা, মাতুয়াইল, শনিরআখড়া, নামাশ্যামপুর, মোহাম্মদবাগসহ বিভিন্ন এলাকার নি¤œাঞ্চল পানিতে তলিয়ে গেছে। অনেকের বাসাবাড়িতে পানি উঠেছে। রাস্তা তলিয়ে গেছে পানির নিচে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-ডেমরার (ডিএনডি) নি¤œাঞ্চল পানিতে তলিয়ে যাওয়ার কারণ হলো এখানে ক্যানলগুলো ময়লাআবর্জনায় ভরে যাওয়ার কারণে পানি দ্রুত নিষ্কাশন হতে পারে না। এ ছাড়া অপরিকল্পিতভাবে বাড়িঘর তোলার পরও অনেকে পাানি নিষ্কাশনের জন্য কোনো ড্রেনেজ ব্যবস্থা রাখেনি। এতে সামান্য বৃষ্টিতে ডিএনডির নি¤œাঞ্চল পানিতে তলিয়ে যায়। সূত্র জানায়, ডিএনডি এলাকায় প্রায় ১২ লাখ মানুষের বসবাস। ডিএনডি বাঁধ এলাকার আয়তন ৩২ দশমিক ৮ বর্গকিলোমিটার। ইরিধান চাষাবাদের জন্য ১৯৬৫ সালে ডিএনডি বাঁধ নির্মাণ শুরু করা হয়। তখন ডিএনডির ভেতরে সেচ প্রকল্প ছিল পাঁচ হাজার ৬৪ হেক্টর।
সূত্র জানায়, আশির দশকের পর থেকে লোকজন ডিএনডি বাঁধের ভেতরে জমি কিনে অপরিকল্পিতভাবে বাড়িঘর, ইটের ভাটা, ছোট-বড় শিল্পকারখানা নির্মাণ করে। অপরিকল্পিত আবাসিক ও কলকারখানা নির্মাণের কারণে ডিএনডি বাঁধ এলাকায় প্রতি বছরই জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। এ নিয়ে এলাকাবাসী দীর্ঘ দিন আন্দোলন করে কিন্তু নিয়মনীতি না থাকায় খালগুলোতে ময়লাআবর্জনা ফেলা হচ্ছে। এ ছাড়া খালের দুই পাশ দখল করে দোকানঘর, বাড়ি, কালভার্ট নির্মাণ করা হয়। এ ছাড়া পানি নিষ্কাশনের পথ রুদ্ধ করে মাছ চাষ করা হয় অনেক স্থানে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের মতে, আবাসিক ও শিল্পবর্জ্য ফেলার কারণে ডিএনডির নিষ্কাশন খালগুলোর কার্যকারিতা কমে গেছে। বর্ষাকালে ভারী বৃষ্টিপাতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে। কিন্তু ক্যানেল নেটওয়ার্ক এবং পাম্প সচল থাকায় বর্তমানে ডিএনডি এলাকার জলাবদ্ধতা সহনীয়পর্যায়ে রাখা সম্ভব হচ্ছে।
পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সূত্রে জানা যায়, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ডেমরা (ডিএনডি) এলাকার জলাবদ্ধতা ও নিষ্কাশনব্যবস্থা উন্নয়নের লক্ষ্যে ১১৩ কিলোমিটার খালের বর্জ্য অপসারণের জন্য সরকার জরুরিভিত্তিতে তিন কোটি ৫৯ লাখ টাকা ব্যয়ে ২০১২ সালের ৩০ জুন প্রকল্পকাজ শেষ করে। পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের গৃহীত প্রকল্পের অগ্রগতিসংক্রান্ত প্রতিবেদনের তালিকায় ডিএনডি এলাকার খালের বর্জ্য অপসারণ সম্পন্ন করার কাজটি ১ নম্বর তালিকাভুক্ত করে গত ২৮ এপ্রিল মন্ত্রণালয় থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।
সিদ্ধিরগঞ্জ শিমরাইলের ডিএনডি পাম্পহাউজের একজন কর্মকর্তা জানান, বৃষ্টিতে উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনো কারণ নেই। প্রধান নিষ্কাশন খালগুলো দিয়ে স্বাভাবিকভাবে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। ওই খালগুলোর পথগুলোও পরিষ্কার রয়েছে। কিন্তু শাখা খালগুলো ময়লাআবর্জনায় আটকে যাওয়ার কারণে ডিএনডির প্রধান খাল পর্যন্ত পানি যেতে পারছে না।
এ দিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি তারা ডিএনডি ক্যানেলের কয়েকটি স্থান অবৈধ দখলমুক্ত ও ময়লাআবর্জনা পরিষ্কার করার কাজ শুরু করেছে।
Disclaimer:
This post might be introduced by another website. If this replication violates copyright policy in any way without attribution of its original copyright owner, please make a complain immediately to this site admin through Contact.

ইউক্রেনে সাময়িক অস্ত্রবিরতি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের

অবশেষে সাময়িক সংঘর্ষ বিরতিতে সম্মত হয়ে আলোচনায় বসতে রাজি হলো ইউক্রেনের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলি৷ সোমবার বিকেলে সংঘর্ষ বিরতির কথা ঘোষণা করেন দোনেৎসকের স্বঘোষিত প্রধানমন্ত্রী আলেকজেন্ডার বরোদাই।

জানা যায়, ইউক্রেন সরকারকে শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত সময় দিয়েছেন আলেকজেন্ডার বরোদাই৷ ততোদিন যদি পেট্রো পরশেনকো সরকার তাঁদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে দাবি দাওয়া মেটাতে সম্মত না হয়, তবে ফের সরকারের বিরুদ্ধে অস্ত্র তুলে নেবেন বিচ্ছিন্নতাবাদীরা৷

উল্লেখ্য, রবিবার ইউক্রেনের বিচ্ছিন্নতাবাদী হিংসা বন্ধের আর্জি জানিয়েছিলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন৷ রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের আহ্বানে সাড়া দেওয়ায়, ইউক্রেন সঙ্কট কাটার সামান্য হলেও সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে৷



Disclaimer:
This post might be introduced by another website. If this replication violates copyright policy in any way without attribution of its original copyright owner, please make a complain immediately to this site admin through Contact.

ইরাকের অখণ্ডতা রক্ষা করতে কুর্দিদের প্রতি কেরির আহ্বান

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি ইরাকের অখণ্ডতা রক্ষার জন্য কুর্দিদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। ইরাকের স্বায়ত্তশাসিত কুর্দি অঞ্চলের নেতাদের সাথে আলাপকালে তিনি এ আহ্বান জানান। ইরাক সঙ্কট নিয়ে আলোচনার জন্য বর্তমানে দেশটি সফর করছেন কেরি।
গতকাল মঙ্গলবার তিনি ইরাকের স্বায়ত্তশাসিত কুর্দি অঞ্চলে পৌঁছেন। দেশটির টুকরো টুকরো হয়ে ভেঙে যাওয়া ঠেকাতে কূটনৈতিক প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে তিনি সেখানে গেছেন। আগের দিন বাগদাদে প্রধানমন্ত্রী নুরি আল-মালিকি এবং অন্যান্য রাজনৈতিক ও ধর্মীয় নেতার সাথে আলোচনা করেন কেরি। তিনি ইরাকি প্রধানমন্ত্রী নুরি আল-মালিকি ও অন্য নেতাদের সাথে বৈঠককালে দেশটিতে সরকার গঠন প্রক্রিয়া জোরদারের আহ্বান জানান। বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসে কেরি বলেন, ইরাকি নেতৃবৃন্দ দেশকে ঐক্যবদ্ধ করতে প্রয়োজনীয় পদপে নিলে ওয়াশিংটন ব্যাপক ও টেকসই সহায়তা দেবে। আর তখন তা হবে অধিক কার্যকর। তিনি বলেন, ‘ইরাকের ভবিষ্যতের জন্য এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত।’
মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের কর্মকর্তারা মনে করেন ইরাকের অখণ্ডতা রক্ষায় কুর্দি নেতাদের বাগদাদের রাজনৈতিক প্রক্রিয়ায় যুক্ত থাকতে সম্মত করা জরুরি। নাম প্রকাশ না করার শর্তে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের এক কর্মকর্তা বলেন, তারা যদি বাগদাদের রাজনৈতিক প্রক্রিয়া থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নেন, তাহলে তাতে অনেক নেতিবাচক প্রবণতা সৃষ্টি হবে।
কুর্দি নেতারা স্পষ্ট করে বলেছেন, ইরাকের অখণ্ডতা রক্ষার প্রচেষ্টা এখন মারাত্মক ঝুঁকিতে রয়েছে। কেরির সাথে বৈঠকের শুরুতে কুর্দি প্রেসিডেন্ট মাসুদ বারজানি বলেন, আমাদের সামনে এখন নতুন এক বাস্তবতা ও নতুন এক ইরাক রয়েছে। এর আগে তিনি সহিংসতার জন্য প্রধানমন্ত্রী নুরি আল-মালিকির ভ্রান্ত নীতিকে দায়ী করেন এবং তার পদত্যাগ দাবি করে বলেন, ইরাকের অখণ্ড থাকার কথা চিন্তা করা কঠিন।
ন্যাটোর মন্ত্রীদের বৈঠক
ইরাক সঙ্কট নিয়ে আলোচনার জন্য ন্যাটোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা গতকাল মঙ্গলবার বৈঠকে বসেন। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বাগদাদের দিকে অগ্রসরমান বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ইরাককে ‘ব্যাপক’ সহায়তা দেয়ার অঙ্গীকার করার পর এ বৈঠক হয়। চলতি মাসের শুরুতে ন্যাটো প্রধান অ্যান্ডার্স ফগ রাসমুসেন বলেন, ইরাকের ঘটনাবলির প্রতি জোট গভীর নজর রাখছে। তবে তিনি এও বলেন, সঙ্ঘাতের ঘটনায় তাদের কিছু করার নেই।
প্রধান তেল শোধনাগার দখল করল আইসিস
 দেশটির প্রধান তেল শোধনাগারটি দখল করেছে বলে দাবি করেছে আইসিস।
ইরাকের গুরুত্বপূর্ণ ওই তেল শোধনাগারটি রাজধানী বাগদাদের উত্তরে সালাউদ্দিন প্রদেশের বেইজি শহরে অবস্থিত। এর আগে দলটি ওই তেল শোধনাগার দখলেরও জন্য একাধিকবার চেষ্টা চালায় তারা। এ শোধনাগারটি দেশের পরিশোধিত জ্বালানি তেলের এক-তৃতীয়াংশের চাহিদা মিটিয়ে থাকে।
স্বাধীন রাষ্ট্র গঠনের দ্বারপ্রান্তে আইসিআইএস
ইরাকের বিদ্রোহীরা সিরিয়া সীমান্তের সব ক’টি এবং জর্দান সীমান্তের একটি সীমান্ত চৌকি দখল করে নিয়ে গোটা পশ্চিম সীমান্তে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দখলকৃত এলাকাকে নিয়ে তারা যে নতুন স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে চায় তাকে বাস্তব রূপ প্রদানে সক্ষম হয়েছে।
সীমান্ত নিয়ন্ত্রণের কারণে সিরিয়া, জর্দান এমনকি সৌদি আরবে বিদ্রোহী তৎপরতা ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কার সৃষ্টি হয়েছে। জর্দান ও সৌদি আরব হচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ মিত্রদের অন্যতম।


Disclaimer:
This post might be introduced by another website. If this replication violates copyright policy in any way without attribution of its original copyright owner, please make a complain immediately to this site admin through Contact.

সর্বকালের সেরা ৫টি হিন্দি ভাষার চলচ্চিত্র

বর্তমানে আমাদের পাশের দেশ ভারতের সিনেমা ও সংস্কৃতি আমাদের প্রভাবিত করছে দারুণ ভাবে। শুধু আমাদেরই না, হলিউডের পর বলিউড দখল করে নিয়েছে আর্ন্তজাতিক সিনেমা অঙ্গন। যদিও বলিউডের ব্যবসায়িক চলচ্চিত্রগুলোর শৈল্পিক মান নিয়ে চলচ্চিত্রবোদ্ধা ও সমালোচকদের নাক সিটকানো ভাব রয়েছে। এবং সেটা অমূলকও নয়। তথাপি বলিউডেও তৈরি হচ্ছে দারুন সব চলচ্চিত্র। এইতো গত বছর পূর্ণ হলো বলিউডের একশো বছর। আর এ উপলক্ষে এনডি টিভি বাছাই করেছিলো এ যাবৎ বলিউডের ৫টি সেরা ছবি। আসুন জেনে নেই সর্বকালের সেরা ৫ টি বলিউড চলচ্চিত্রের কথা।

৫। দো বিঘা জামিন:
‘দো বিঘা জামিন’ বাঙালি চলচ্চিত্রকার বিমল রায়ের হিন্দি ভাষায় নির্মিত চলচ্চিত্র। এটি ১৯৫৩ সালে মুক্তি লাভ করে। সলিল চৌধুরীর ছোট গল্প থেকে নির্মিত এ চলচ্চিত্রটি ইটালিয়ান নিওরিয়ালিস্টিক ঘরানার ভিত্তিরিও দে সিকা’র Bicycle Thieves (1948) সিনেমা দেখে অনুপ্রাণিত হয়ে নির্মাণ করেন বিমল রায়।
শাম্ভু মাহেতো নামের কৃষকের স্ত্রী পার্বতী আর ছেলে কানহাইয়্যাকে নিয়ে বেঁচে থাকার একমাত্র সম্বল দুই বিঘা জমি রক্ষা করতে জীবনযুদ্ধের চিত্রিত রূপ ‘দুই বিঘা জামিন’। আশা-নিরাশা আর স্বপ্ন-হতাশা ও প্রাপ্তির গল্পের বুনটে এই চলচ্চিত্র জয় করে নিয়েছিলো 7th Cannes Film Festival (1954) এ Prix International পুরস্কার সহ বেশ কয়টি জাতীয় ও আর্ন্তজাতিক পুরস্কার।

৪। দো আঁখে বারা হাত:
হিন্দি চলচ্চিত্র পরিচালক ভানকুদরে শান্তারাম পরিচালিত এই চলচ্চিত্রটি মানবিক মনোস্তাত্বিক গল্প নিয়ে নির্মিত। 8th Berlin International Film Festival এ ‘দো আঁখে বারা হাত’ জিতে নেয় সিলভার বিয়ার আর এটিই প্রথম ভারতীয় চলচ্চিত্র যা জয় করে নেয় গোল্ডেন গ্লোব এ্যাওয়ার্ড স্যামুয়েল গোল্ডউইন এ্যাওয়ার্ড ক্যাটাগরিতে। ছয় বন্দীকে প্যারোলে মুক্তি দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে দেয়ার প্রচেষ্টার গল্পকে কেন্দ্র করে নির্মিত এই চলচ্চিত্র ১৯৫৭ সালে মুক্তি পায়।

৩। মাদার ইন্ডিয়া:
আমেরিকান লেখক ক্যাথেরিন মায়োস এর ভারতীয় সমাজ, ধর্ম ও সংস্কৃতি বিষয়ক বই ‘মাদার ইন্ডিয়া’ পড়ে অনুপ্রাণিত হয়ে পরিচালক মেহবুব খান তাঁরই আরেক চলচ্চিত্র আওরাত (১৯৪০) এর রিমেক করেন ১৯৫৭ সালে ‘মাদার ইন্ডিয়া’ নামের এই চলচ্চিত্রটি। নার্গিস, সুনীল দত্ত, রাজেন্দ্র কুমার, রাজকুমারের অসাধারণ অভিনয় এই চলচ্চিত্রের প্রাণ।

প্রতিকূল সমাজ ও পরিস্থিতিতে একজন দারিদ্র্যপীড়িত মহিলার তার সন্তানদের নিয়ে নিজের আদর্শে টিকে থাকার গল্প নিয়ে নির্মিত এই চলচ্চিত্র ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে প্রথম ১৯৫৮ সালে দ্য একাডেমি এ্যাওয়ার্ড ফর বেস্ট ফরেইন ল্যাঙ্গুয়েজ ফিল্ম শাখায় প্রতিযোগিতা করার অনুমোদন পায়। এছাড়াও মূখ্য অভিনেত্রী নার্গিস এবং পরিচালক মেহবুব খান বিভিন্ন জাতীয় ও আর্ন্তজাতিক পদক লাভ করেন এবং প্রশংসিত হন।

২। পিয়াসা:
ভারতের স্বাধীনতা উত্তর অস্থির সময়ের এক ব্যর্থ কবির জীবন সংগ্রামের গল্প নিয়ে ভারতীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা গুরু দত্ত তৈরি করেন ‘পিয়াসা’। এস ডি বর্মণের সুরকৃত মোহাম্মদ রাফির কণ্ঠে অসম্ভব সুন্দর বেশ কিছু গান রয়েছে এই সিনেমায়। গুরু দত্ত পরিচালনার পাশাপাশি মূল চরিত্রে অভিনয়ও করেন। গুলাব নামের পতিতার চরিত্রে ওয়াহিদা রেহমান অভিনয় করে বেশ প্রশংসিত হন। টাইম ম্যাগাজিনের ‘সর্বকালের সেরা ১০০ সিনেমা’র তালিকায় স্থান করে নিয়েছিলো ‘পিয়াসা’।

১। লগান:
এই চলচ্চিত্রটি সম্পর্কে আপনারা সকলেই হয়তো কম বেশি জানেন। পরিচালক আশুতোষ গুয়ারিকের রচনায় ও পরিচালনায় ‘লগান’ একটি এপিক স্পোর্টস ড্রামা। বক্স অফিসে আলোড়ন তোলা এই চলচ্চিত্রে রয়েছে আমির খান, গ্রেসি সিং এর দুর্দান্ত অভিনয় আর এ আর রহমানের সুর করা চমৎকার সব গান।
ইংরেজদের বিরুদ্ধে গ্রামের সাধারণ মানুষেরা ক্রিকেট খেলে, এই খেলা যেন শুধু খেলা নয় শোষকের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার সংগ্রাম, অলিখিত প্রাণপণ যুদ্ধ।

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০০২ এ লগান মনোনিত হয় বেস্ট ফরেন ল্যাঙুয়েজ ফিল্ম ক্যাটাগরিতে একাডেমি এ্যাওয়ার্ড নমিনেশন অনুষ্ঠানে। এছাড়াও প্রচুর জাতীয় ও আর্ন্তজাতিক পদকে ভূষিত হয় লগান চলচ্চিত্রটি। ভারতীয় চলচ্চিত্রে এটি নতুন ইতিহাস তৈরি করে।



Disclaimer:
This post might be introduced by another website. If this replication violates copyright policy in any way without attribution of its original copyright owner, please make a complain immediately to this site admin through Contact.

বাংলাদেশ


এ বিষয়ের সব সংবাদ

এশিয়া


এ বিষয়ের সব সংবাদ

মধ্যপ্রাচ্য


এ বিষয়ের সব সংবাদ

আমেরিকা


এ বিষয়ের সব সংবাদ

ইউরোপ


এ বিষয়ের সব সংবাদ

আফ্রিকা


এ বিষয়ের সব সংবাদ

খেলাধুলা


এ বিষয়ের সব সংবাদ

বিনোদন


এ বিষয়ের সব সংবাদ

ভিন্ন রকম


এ বিষয়ের সব সংবাদ

প্রযুক্তি


এ বিষয়ের সব সংবাদ

অর্থনীতি


এ বিষয়ের সব সংবাদ

শিল্প ও সাহিত্য


এ বিষয়ের সব সংবাদ